রাবিতে দ্বিতীয়বার ভর্তি পরীক্ষার সুযোগ বহাল

0
1877
Print Friendly, PDF & Email

নিউজ ডেস্ক : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ২০১৭-২০১৮ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় দ্বিতীয়বার অংশগ্রহণের সুযোগ বহাল রেখেছে ভর্তি পরীক্ষার মূল কমিটি।

গত বৃহস্পতিবার বিকেলে এসব তথ্য জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক এম এ বারী। তবে উপ-কমিটির করা সুপারিশে আবেদনে যোগ্যতা শিথিল করা হয়েছে। পাশাপাশি এ বছর থেকে মুক্তিযোদ্ধা কোটায় পুত্র-কন্যার পাশাপাশি নাতি-নাতনিরাও বিবেচিত হবেন।

রেজিস্ট্রার জানান, বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের সভাপতিত্বে সিনেট ভবনে প্রথম বর্ষ ভর্তি পরীক্ষার মূল কমিটির সভা শুরু হয়। এ সময় বেশ কয়েকটি এজেন্ডা ছিল। কমিটির সদস্যদের মতামতের ভিত্তিতে ভর্তি উপ-কমিটির সুপারিশ করা দ্বিতীয়বার ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ বহাল রাখা হয়েছে। তবে উপ-কমিটির সুপারিশ করা ভর্তি আবেদন যোগ্যতা মানবিক ৭ দশমিক ৫০, ব্যবসায় শিক্ষা ৮ ও বিজ্ঞান শাখার শিক্ষার্থীদের ৮ দশমিক ৫০ পয়েন্ট রাখার সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসে ভর্তি কমিটি গত বছরের ভর্তি আবেদন যোগ্যতা অর্থাৎ মানবিকে ৭, ব্যবসায় শিক্ষায় ৭ দশমিক ৫০ ও বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীদের ৮ পয়েন্ট রাখার সিদ্ধান্ত বহাল রেখেছে। এ ছাড়া মুক্তিযোদ্ধা কোটার ক্ষেত্রে তাদের পুত্র-কন্যার পাশাপাশি নাতি-নাতনিরাও বিবেচিত হবে।

তিনি আরো বলেন, ‘আমি আগেই বলেছিলাম ভর্তি উপ-কমিটি শুধু সুপারিশ করে। সেটা বহাল রাখা বা বাদ দেওয়ার ক্ষমতা ভর্তি পরীক্ষা মূল কমিটি রাখে। আর বর্তমানে ঢাকা, চট্টগ্রামসহ প্রায় সব বিশ্ববিদ্যালয় এবং চাকরির ক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধাদের নাতি নাতনিদের বিবেচনা করা হচ্ছে। পাশাপাশি রাজশাহী অঞ্চলের মুক্তিযোদ্ধাদের দীর্ঘদিনের দাবির পরিপ্রেক্ষিতেই মুক্তিযোদ্ধার নাতি নাতনিদের বিবেচনা করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’

উল্লেখ্য, গত ৩ আগস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আব্দুস সোবহানের সভাপতিত্বে ভর্তি উপ-কমিটির সভা থেকে দ্বিতীয়বার ভর্তি পরীক্ষার সুযোগ দান ও ভর্তি আবেদন যোগ্যতা বৃদ্ধির জন্য ভর্তি মূল কমিটিকে সুপারিশ করা হয়। আগামী ১০ সেপ্টেম্বর থেকে ভর্তি আবেদন শুরু হবে এবং ২২-২৬ অক্টোবর ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

 

শেয়ার করুন