রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য ২০০ কোটি টাকা বরাদ্দ

0
1528
Print Friendly, PDF & Email

ডেস্ক নিউজ : রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর মাইগ্রেশন (আইওএম) ২০০ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছে বলে জানিয়েছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া।

বুধবার রাজধানীর একটি হোটেলে আইওএম’র মহাপরিচালক উইলিয়াম ল্যাসির নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল মতবিনিময় শেষে তিনি একথা বলেন। এ সময় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. শাহ্ কামাল উপস্থিত ছিলেন।

বলপূর্বক বাস্তুচ্যুত মিয়ানমারের নাগরিকদের জন্য বাংলাদেশের পক্ষ থেকে গৃহীত সব পদক্ষেপ প্রতিনিধি দলকে অবহিত করেন ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী বলেন, ৩ হাজার একর এলাকায় ২০টি ব্লক করে রোহিঙ্গাদের রাখা হয়েছে। তাদের জন্য লক্ষাধিক শেড নির্মাণ করা হয়েছে। গর্ভবতী নারীসহ সব অসুস্থ লোককে চিকিৎসা সেবা দেওয়া হয়েছে।

এত লোকের জন্য বিশুদ্ধ পানি ও দৈনন্দিন পানির যোগান দেওয়া একটা বিরাট চ্যালেঞ্জ। সরকার ও বিভিন্ন এনজিওর সহায়তায় বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থা করা হয়েছে।

ত্রাণমন্ত্রী বলেন, মানবিক কারণে বাংলাদেশ রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধানে জাতিসংঘে ৫ দফা প্রস্তাব উপস্থাপন করেছেন। এর আলোকে অতিদ্রুত এ সমস্যার সমাধান করতে হবে। রোহিঙ্গা নাগরিকদের মিয়ানমারের নাগরিক হিসেবে উল্লেখ করে এদের ফিরিয়ে নিতে বিভিন্ন দেশ ও সংস্থাকে চাপ প্রয়োগ করার জন্য তিনি আইওএম’র মহাপরিচালক উইলিয়াম ল্যাসিকে অনুরোধ করেন।

উইলিয়াম ল্যাসি বলেন, আইওএম বাংলাদেশের পাশে রয়েছে এবং তাদের পক্ষ থেকে বাংলাদেশকে সব ধরনের সহযোগিতা দেওয়া হবে। রোহিঙ্গাদের জন্য তার সংস্থা থেকে ২০০ কোটি টাকা শেড নির্মাণ, স্যানিটেশন, স্বাস্থ্য, পানীয় জলের ব্যবস্থা ইত্যাদি কাজে ব্যবহার করা যাবে।

উইলিয়াম ল্যাসি আরো বলেন, আগামী ২৩ অক্টোবর জেনেভায় অনুষ্ঠিত আইওএম’র সভায় রোহিঙ্গাদের জন্য ১ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ চাওয়া হবে। রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধানে আন্তর্জাতিক সংস্থাসমূহের প্রায় ৪ হাজার কোটি টাকা প্রয়োজন। সংস্থাসমূহ এ অর্থ সংগ্রহের চেষ্টা করছে বলেও তিনি মন্ত্রীকে অবহিত করেন।

শেয়ার করুন