আটক করে টাকা দাবি, দাবিকৃত টাকা না পাওয়ায় মাদকের মামলা!

0
1257
Print Friendly, PDF & Email

গাজীপুর প্রতিদিন ডেস্ক : বাড়ি ফেরার পথে পোশাক ব্যবসায়ীকে আটক করে মাদকের মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর অভিযোগ উঠেছে টঙ্গী পূর্ব থানা পুলিশের দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে। পারভেজ নামের ওই ব্যবসায়ীকে ইয়াবার মামলায় দেখিয়ে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

বুধবার রাত সাড়ে সাতটার দিকে গাজীবাড়ি এলাকা থেকে গার্মেন্টস ব্যবসায়ী পারভেজকে আটক করেন পিএসআই রাজিব হোসেন ও ওএসআই মেজবাহ উদ্দিন।

অভিযোগ উঠেছে, এসময় তারা পারভেজের কাছে কোনও মাদক না পাওয়া সত্ত্বেও পরিবারের কাছে ২০ লাখ টাকা দাবি করেন।

পারভেজের মা পাপিয়া বেগম জানান, বুধবার রাতে পারভেজ স্থানীয় আবেদা হাসপাতালে মেডিকেল রিপোর্ট ও ওষুধ আনতে বাসা থেকে বের হয়। পথিমধ্যে পুলিশের সোর্স শামীম ওরফে কটু শামীমের মাধ্যমে পিএসআই রাজিব হোসেন ও ওএসআই মেজবাহ উদ্দিন পারভেজকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

তিনি বলেন, খবর পেয়ে থানায় গেলে পুলিশ কর্মকর্তা রাজিব প্রথমে ২০ লাখ টাকা দাবি করেন। টাকা না দিলে মাদক ও হত্যা মামলায় চালানের হুমকি দেন। রাতভর দরকষাকষির একপর্যায়ে তিন লাখ টাকা দাবি করেন পিএসআই রাজিব।

তিনি বলেন, এতো টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে পিএসআই রাজিব সকাল দশটার মধ্যে ১ লাখ টাকা দিলে ছেড়ে দিবে বলে জানায়। সকালে বিভিন্ন জায়গা থেকে ৬০ হাজার টাকা সংগ্রহ করে থানায় গেলে ওই পুলিশ কর্মকর্তা ক্ষিপ্ত হয়ে বলেন এখন কিছু করার নাই। মামলা হয়ে গেছে। পরে ৫৫০ পিচ ইয়াবার মিথ্যা মামলা দিয়ে পারভেজকে আদালতে প্রেরণ করা হয়।’ পরিবারের দাবি, পারভেজের বিরুদ্ধে গাজীপুরের কোন থানায় মাদকের মামলা নেই।

তবে পিএসআই রাজিব হোসেন টাকা দাবির বিষয়টি অস্বিকার করে ওসির সঙ্গে কথা বলার পরামর্শ দেন। এ প্রতিবেদকের কাছে পারভেজের পরিবারের অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন বলেও তিনি দাবি করেন।

এ বিষয়ে টঙ্গী পূর্ব থানার ওসি মো. কামাল হোসেনের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, পারভেজকে ৫৫০ পিচ ইয়াবার মামলায় চালান দেওয়া হয়েছে।

শেয়ার করুন