কালিয়াকৈরে ২য় দিনে ঢিলেঢালা লকডাউন

0
94
Print Friendly, PDF & Email

ডেস্ক নিউজ: গাজীপুরের কালিয়াকৈরে দ্বিতীয় দিনেও ঢিলেঢালা ভাবে চলছে লকডাউন। লকডাউন উপেক্ষা করে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি নিয়েই বিভিন্ন অজুহাতে বাড়ি থেকে বের হচ্ছে মানুষ। উপজেলার অধিকাংশ এলাকাতেই স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব কোনোটাই মানা হচ্ছে না।

বুধবার (২৩ জুন) সকাল থেকেই উপজেলার ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের চন্দ্রা এলাকায় এমন চিত্র দেখা যায়। মার্কেট, রাস্তা ও বাজার এলাকাগুলোতে অবাধে চলাচল করছে মানুষ।

লকডাউনের দ্বিতীয় দিনে সরেজমিন দেখা যায়, উপজেলার সড়কগুলোতে ইজিবাইক, রিকশা, মোটরসাইকেল, মাহিন্দ্রা, প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাস, ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান চলতে দেখা গেছে। তবে বন্ধ রয়েছে দূরপাল্লার গণপরিবহন। এদিকে লকডাউন বাস্তবায়নে মাঠে রয়েছে পুলিশের কঠোর অবস্থান।

এছাড়া উপজেলার সকল শিল্প কারখানাসহ খোলা রয়েছে দোকানপাট, মিষ্টি ও খাবারের হোটেল, চায়ের দোকানসহ বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান।

চন্দ্রা এলাকায় এক অটোরিকশা চালক গফুর মিয়া বলেন, বাড়িতে বসে থাকলে পরিবার নিয়ে কি ভাবে বাচব, না খেয়ে থাকতে হবে। তাছাড়া কিস্তিসহ নানা ঝামেলা রয়েছে। এজন্য রিকশা নিয়ে রাস্তায় এসেছি। কিন্তু পুলিশ রিকশার চাবি নিয়ে যাচ্ছে। তারা রাস্তায় রিকশা চালাতে দিচ্ছেন না, কি করব পেটের দায়ে তাদের কথা অমান্য করেই রাস্তায় নামতে হচ্ছে।

চন্দ্রা এলাকায় পরিবহনের জন্য অপেক্ষারত আলামিন জানান, আমি টাঙ্গাইল জামালপুর যাব। প্রায় তিনঘন্টা ধরে বসে আছি। বাড়িতে অনেক জামেলা রয়েছে। যে কোন উপায়েই আমাকে বাড়ি যেতে হবে।

সালনা (কোনাবাড়ী) হাইওয়ে থানার ওসি মীর গোলাম ফারুক বলেন, সকাল থেকেই আমরা মহাসড়কে আছি। মহাসড়কে কোন ধরনের যাত্রীবাহি পরিবহন নেই। মহাসড়কে সর্বক্ষন আমাদের জরুরী টহল টিম রয়েছে। এছাড়া ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের কয়েকটি পয়েন্টে আমরা চেকপোষ্ট বসিয়ে তল্লাশী করছি যাতে করে অন্য জেলা থেকে যাত্রী নিয়ে কোন পরিবহন এ জেলায় প্রবেশ করতে না পারে।

শেয়ার করুন