গাজীপুরে বিএনপির পদযাত্রায় পুলিশের বাধার অভিযোগ

0
200
Print Friendly, PDF & Email

শহিদুজ্জামান, নিজেস্ব প্রতিবেদক : গাজীপুরে বিএনপির পদযাত্রা কর্মসূচিতে পুলিশের বাধার অভিযোগ উঠেছে। শনিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুর সাড়ে ১২টার পর জেলা বিএনপির দলীয় কার্যালয় থেকে নেতাকর্মীরা পদযাত্রা বের করেন। তবে কিছুদূর যাওয়ার পরই পদযাত্রাটি পুলিশের বাধার মুখে আটকে যায়।

সকাল থেকে গাজীপুরের বিভিন্ন উপজেলা হতে খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে জেলা বিএনপি কার্যালয়ে উপস্থিত হন বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা। পরে দুপুর ১২টার দিকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় দলীয় কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে বক্তব্য দেন।

বক্তব্য শেষে গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের নেতৃত্বে হাজার হাজার নেতাকর্মী দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে শিববাড়ি-রাজবাড়ি সড়কে পদযাত্রা বের করেন। তবে পদযাত্রাটি দলীয় কার্যালয় থেকে জোরপুকুর পর্যন্ত যাওয়ার কথা থাকলেও পুলিশ ব্যারিকেড দিয়ে আটকে দেয়। পরে পুলিশের বাধায় দলীয় কার্যালয় থেকে ৫০ গজ সামনে গিয়ে পদযাত্রাটি শেষ হয়। এ সময় নেতাকর্মীরা রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে স্লোগান দিতে থাকেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ‘৯৫ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছিল না। তখন আওয়ামী লীগ, জামায়াত, জাতীয় পার্টি মিলে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের জন্য আন্দোলন করে। সে সময় সংবিধানের ধারাবাহিকতা রক্ষার জন্য নির্বাচন হয়। সেই নির্বাচনে জয়লাভ করে বেগম খালেদা জিয়া আড়াই মাস ছিলেন। সেই আড়াই মাসের মধ্যে সংসদে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের বিল পাস করেন এবং স্বেচ্ছায় ক্ষমতা হস্তান্তর করেন।’

তিনি আরো বলেন, ‘সংবিধান তো আল কোরআন, বাইবেল বা গীতা নয় যে পরিবর্তন করা যাবে না। সংবিধান দেশের জন্য, দেশের মানুষের জন্য। সে কারণেই দেশের স্বার্থে, জনগণের স্বার্থে আমাদের এই দশ দফা গণতান্ত্রিক দাবি। তাই এটি আমরা গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় আদায় করতে চাই। আমরা অন্যায়ের প্রতিবাদ করছি, অন্যায় করছি না। আমরা ভোটচোরদের বিপক্ষে কথা বলছি, যারা এ দেশের টাকা বিদেশে পাচার করে তাদের বিরুদ্ধে কথা বলছি। আপনারা নিজেরাই দেখেছেন, ক্যামেরা চেক করে দেখেন জবাব পেয়ে যাবেন পুলিশ কীভাবে বাধা দিয়েছে।’

গাজীপুর জেলা বিএনপি সভাপতি ফজলুল হক মিলন বলেন, পুলিশ সম্পূর্ণ স্বৈরাচারী আচরণ করেছে শেখ হাসিনার নির্দেশে। এটি সম্পূর্ণ জনগণের দাবি কিন্তু সরকার জনগণের দাবি আদায়ের কোনো সুযোগ দিচ্ছে না। এখানে বাধা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু যেকোনো ত্যাগের বিনিময়ে আমরা এ আন্দোলন চালিয়ে যাব।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় বিএনপির শ্রমবিষয়ক সহসম্পাদক হুমায়ুন কবির খান, জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও কালিয়াকৈর পৌরসভার মেয়র মজিবুর রহমান প্রমুখ।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন সদর থানার ওসি জিয়াউল ইসলাম বলেন, বিএনপির পদযাত্রা শান্তিপূর্ণভাবে শেষ হয়েছে। আমাদের পক্ষ থেকে কোনো বাধা দেওয়া হয়নি।

শেয়ার করুন