নারী আইপিএলের নিলামে দামি ১০ ক্রিকেটার

0
465
Print Friendly, PDF & Email

খেলা ডেস্ক : শেষ হয়েছে নারী আইপিএলের নিলাম। রাতারাতি অনেক ক্রিকেটার কোটিপতি হয়ে গেছেন। কয়েক বছর আগেও ভারতে নারীদের ক্রিকেট নিয়ে এত মাতামাতি ছিল না।

কিন্তু সোমবার ঐতিহাসিক দিন হয়ে থাকল। ভারতের প্রথমবার নারীদের টি-টোয়েন্টি লিগের নিলাম হলো। সেই নিলামে মোট ২০ জন ক্রিকেটার কোটিপতি হলেন।

ছেলেদের বিচারে টাকার অঙ্ক অনেক কম হলেও নারী ক্রিকেটারদের কাছে নেহাত ফেলে দেওয়ার মতো নয়। টাকার অঙ্কের বিচারে প্রথম ১০ ক্রিকেটার কোটিপতি হলেন—

স্মৃতি মান্ধানা (বেঙ্গালুরু, ৩.৪০ কোটি): চোটের কারণে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে রোববার খেলতে পারেননি। কিন্তু এই ফরম্যাটে তার আগ্রাসী, মারকুটে ব্যাটিংয়ের চাহিদা মারাত্মক। নিলামের টেবিলেও স্মৃতিকে নিয়ে ঝড় দেখা গেল। বেঙ্গালুরু ও মুম্বাইয়ের মধ্যে লড়াইয়ের পর শেষ হাসি বেঙ্গালুরুর।

অ্যাশলে গার্ডনার (গুজরাট, ৩.২০ কোটি): অস্ট্রেলিয়ার এই ক্রিকেটার আন্তর্জাতিক মঞ্চে মারকুটে বলেই পরিচিত। টি-টোয়েন্টিতে স্ট্রাইক রেট ১৩৩। স্বাভাবিকভাবেই তাকে নিতে শেষ পর্যন্ত লড়েছে গুজরাট।

ন্যাট শিভার (মুম্বাই, ৩.২০ কোটি): ইংল্যান্ডের এ ক্রিকেটার আন্তর্জাতিক টি২০-তে একশরও বেশি ম্যাচ খেলেছেন। বল, ব্যাট দুটোরই হাত ভালো। তাকে তুলে নিয়েছে মুম্বাই।

দীপ্তি শর্মা (লখনউ, ২.৬০ কোটি): নিজের রাজ্য উত্তরপ্রদেশের দলের হয়ে খেলতে পারবেন। ভারতের টি-টোয়েন্টি দলে নিয়মিত সদস্য। বিশ্বকাপেও রয়েছেন।

জেমাইমা রদ্রিগেস (দিল্লি, ২.২০ কোটি): পাকিস্তানের বিপক্ষে বিশ্বকাপে দেশকে ম্যাচ জিতিয়েছেন। জেমাইমা আইপিএলেও বড় ‘রান’ করলেন। দিল্লি শেষ পর্যন্ত লড়ে তাকে কিনে নিল দুই কোটিরও বেশি দামে।

বেথ মুনি (গুজরাট, ২ কোটি): ইনিও অস্ট্রেলিয়ার। তিন নম্বরে নেমে দারুণ খেলতে পারেন। টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে অন্যতম ধারাবাহিক ক্রিকেটার। একার হাতে ম্যাচ জেতানোর ক্ষমতা রাখেন।

শেফালি বর্মা (দিল্লি, ২ কোটি): ভারতের হয়ে ওপেন করতে নামেন। চালিয়ে খেলার কারণে সুনাম রয়েছে। সম্প্রতি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে নেতৃত্ব দিয়ে দলকে জিতিয়েছেন। ডব্লিউপিএলেও ওপেন করার সম্ভাবনা রয়েছে।

পূজা বস্ত্রকর (মুম্বাই, ১.৯০ কোটি): বল, ব্যাট দুটোই করতে পারেন। সংক্ষিপ্ততম ফরম্যাটে অলরাউন্ডারদের চাহিদা এমনিই বেশি। ভারতীয় দলেও তার ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। ফলে মুম্বাই টাকা খরচ করতে দেরি করেনি।

রিচা ঘোষ (বেঙ্গালুরু, ১.৯০ কোটি): পশ্চিম বাংলার ক্রিকেটার, পাকিস্তানের বিপক্ষে দারুণ খেলে দলকে জিতিয়েছেন। জেমাইমার পাশাপাশি পরের দিকে নেমে তার মারা পাঁচটি বাউন্ডারি দলকে জেতাতে সাহায্য করেছে। তিনিও সম্প্রতি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জিতে এসেছেন।

সোফি এক্লেস্টোন (ইউপি ওয়ারিয়র্স, ১.৮০ কোটি): অলরাউন্ডার হিসাবে খ্যাতি রয়েছে। ইংল্যান্ড দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য এবার ডব্লিউপিএলেও নিজের দক্ষতা দেখাতে মরিয়া।

শেয়ার করুন